ইসলামিক টিপস

যে ৩ টি কাজের জন্য আমাদের ঘরে বরকত আসে না ।

আসসালামু ওয়ালাইকুম ।

Table of Contents

যে ৩ টি কাজের জন্য আমাদের ঘরে বরকত আসে না ।

প্রিয় DeshTunes.Com ভিজিটরগন আশা করি আল্লাহর রহমতে ভালো আছেন । আজ আমি আপনাদের সাথে এমন ৩ টি কাজ শেয়ার করবো এ ৩ টি কাজ যে ঘরে হয় সেই ঘরে কখনোই বরকত আসে না । অনেকেই বলে আমার ঘরে বরকত নাই , আয় রোজগার ভালো হয় না , হাজার হাজার টাকা উপার্জন করে কিন্তু কোনো না কোনো বিপদ লেগেই আছে । হয় কোনো মাসে বাচ্চাদের রোগব্যাধি বা কোনো মাসে দূর্ঘটনা না হয় বড় ধরনের ঝণের বোঝা লেগেই আছে । এমন কোনো সপ্তাহ নেই যে ডাক্তারের কাছে যেতে হয় না । আর এইসব কারণে ভালো আয় রোজগার এর পরেও মাস শেষে সংসারে অভাব অনাটন লেগেই থাকে ।

যে ৩ টি কাজের জন্য আমাদের ঘরে বরকত আসে না

প্রিয় ভাই ও বোনেরা , আমরা জানি না কি কারণে ঘরের বরকত চলে যায় । তাই আমরা সেইসব কাজ করে বসি যার ফলে আমাদের ঘরের বরকত থাকে না । তাই আমি আপনাদেরকে এমন ৩ টি কাজের বিষয়ে বলবো যে কাজের ফলে আমাদের ঘরসমূহের বরকত চলে যায় আর ফেরত আসে না । সেইসব কাজ হলোঃ

যে ৩ টি কাজের জন্য আমাদের ঘরে বরকত আসে না ।

১. মিথ্যা কথা বলা

যে ঘরের লোকজন মিথ্যাবাদী সেই ঘরের বরকত দূর হয়ে যায় । আর মিথ্যা এমন একটি অপরাধ যে মিথ্যা বলে সে নানান অপকর্মে লিপ্ত হতে পারে অনায়াসেই । আর এইসব গুনাহ এবং অপরাধের কারণে তার ঘর এবং জীবন থেকে বরকত চলে যায় ।

এক ব্যক্তি নবী করিম (সা) এর নিকট এসে আরোজ করলো , ইয়া রাসূলাল্লাহ আমি অনেক অনেক গুনাহ ছাড়তে চাই কিন্তু পারিনা । তখন নবী করিম (সা.) বললেন, তুমি শুধুমাত্র মিথ্যা বলা ছেড়ে দাও| তখন দেখবে আস্তে আস্তে তোমার সব অপরাধ তোমার থেকে বিদায় নিয়েছে |

সে যখন মিথ্যা বলা ছেড়ে দিলো তখন আস্তে আস্তে তার সব কুঅভ্যাস তার থেকে বিদায় নিলো । সুতরাং মিথ্যা হলো সকল অপরাধের প্রথম পদক্ষেপ । তাই মিথ্যা থেকে বাঁচতে পারলে আপনি অনেক গুনাহ থেকে বেঁচে যাবেন এবং এরফলে আল্লাহ রাব্বুল আলামীন আপনার ঘরে অধের বরকত এবং রহমত নাজিল করবেন । সুবাহানাল্লাহ 💝💝

২. আল্লাহ প্রদত্ত নেয়ামত এবং রিজিকের সাথে বেয়াদবি করা যাবে না ।

এখন আপনি ভাবতে পারেন যে আল্লাহর নেয়ামত তথা রিজিকের সাথে মানুষ কিভাবে বেয়াদবি করে ? বেয়াদবি মূলত আমরা করি অপচয়ের মাধ্যমে এবং এই অপচয় যারা করেন তাদের ঘর থেকে বরকত চলে যায় । আজকাল এমন হাড়ে অপচয় বৃদ্ধি পেয়েছে যে যা ভাষায় প্রকাশ করা যাবে না । প্রয়োজন নেই তারপরেও স্বামীর উপরে একপ্রকার পেশার তৈরি করে অনেক বনেরাই প্রয়োজনের চেয়ে অনেক ড্রেস কিনে ঘর ভরিয়ে ফেলছে । এছাড়াও গৃহস্থালির খাবার দাবার থেকে শুরু করে প্রয়োজনের তুলনায় অতিরিক্ত খাবার রান্না করা , অতএবপর তা বাসি পচে গেলে ফেলে দেয়া এছাড়াও অতিরিক্ত খরচ বাড়িয়ে দেয়া এগুলো অন্তত রকমের ভারি কুঅভ্যাস । আর এই কুঅভ্যাস এর কারণে ঘর থেকে আস্তে আস্তে বরকত উঠে যায় । তাই আমাদের প্রত্যেকের ঘর থেকে এই কুঅভ্যাস গুলো দূর করতে হবে । বিশেষ করে বিয়ে বাড়ীতে খাওয়ার পরে প্রত্যেকের প্লেটে রয়ে যায় অতিরিক্ত খাবার যার স্থান হয় নালা নরদ্ধমায় , অথচ কত মানুষ অভুক্ত আছে , আয়োজন হয় বেশি কিন্তু খাওয়া হয় কম আর অপচয় হয় বেহিসেবি । চাইলেই এই খাবার গুলো নষ্ট না করে , খাবার গুলো প্যাকেট করে পাঠিয়ে দেয়া যায় গরীবদের মাঝে । সেই উদ্দ্যাগও আমাদের দেশে দেখা যায় না । তার ফলে আমাদের ঘর থেকে বরকত উঠে যায় । আল্লাহ রাব্বুল আলামীন আমাদের সকল ভাই ও বোনদের এই বিষয়গুলো এড়িয়ে চলার তৌফিক দান করুক আমীন ।

৩. নামাযে অবহেলা করা ।

যারা নামায না পড়ে আয়রোজগার কামনা করে তারা মূলত বোকার সাম্রাজ্য বাস করছে । যে ঘরে নামায নাই সেই ঘরে যতই আয়রোজগার করোনা কেন বরকত থাকবে না ।

রাসূলে পাক ( সা. ) বলেছেন , ফজরের নামাজ মানুষের আয় উপার্জনের বরকত দান করে ||

অন্য একটি হাদিসে আছে ,

পাঁচ ওয়াক্তে নাজাযে পাঁচটি ফজিলত

১. ফজরের নামায না পড়লে চেহারার উজ্জলতা নষ্ট হয়ে যায় ।
২. জোহরের নামায না পড়লে রুজির বরকত কমে যায় ।
৩. আসরের নামায না পড়লে শরীরের শক্তি কমে আসবে ।
৪. মাগরিবের নামায না পড়লে সন্তানদি কোনো উপকারে আসবে না ।
৫. এশারের নামায না পড়লে নিদ্রায় পরিতৃপ্তি হবে না ।

আল্লাহ রাব্বুল আলামীন নামাযের মাধ্যমে আমাদের ঘরে বরকত আনার তৌফিক দান করুন । অবশেষে আমরা ঘরের বরকত ধরে রাখতে মিথ্যা পরিত্যাগ করি । আল্লাহ আমাদের নামায পড়ার তৌফিক দান করুন এবং খাবার অপচয় থেকে আমাদের রক্ষা করুন । আমিন ।

আরো পড়ুনঃ

Top 7 Best Earphones Under 500 TK.

পুরনো মোবাইল কিনতে আমরা যে ৫ টি ভুল করি । (Old phone buying Guide )

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button